তাজ ইসলামের কবিতা

0 26

১.
শোলকতাজ
ক.
সুদিন দুর্দিন
সব দিনই যায়
আশায় আশায় কিছু
কিছু হতাশায়।
শোলোকতাজ
খ.
কারো পুত্র কোনক্রমে
কুপুত্র হলে
বুক ভাঙে বেদনায়
চোখ ভাসে জলে।

গ.
সুদিনের বাদশা
দুর্দিনে দাস
এই হল ভাগ্যের
বড় পরিহাস

২.
অভিজ্ঞতা

যে পুরুষ গোলাপের ডালা নিয়ে অপেক্ষমান
তার ভিতরে একটা নেকড়ে উৎপেতে আছে
তোমাকে ভেড়া ভেবে খুবলে খাবে বোন
আমি মেয়ে বলেই তোমাকে বলছি
তার নেকড়েটা আমি দেখে ফেলেছিলাম
তাই পালিয়ে বেঁচেছি।

৩.
রোমান্টিক

জোসনা দেখে যখন তোমার
মন হয়ে যায় রোমান্টিক
তোমার পাশে জেগে ভাবি আমার এখন ঘুমান্ ঠিক?
তোমার চুলের গন্ধ শুঁকে
আমিও হই রোমান্টিক।
৪.

আমার ধ্যান ভেঙ্গে যায়

প্রেমের পুকুরে তোমার ডুব দিতে
মাছরাঙা ধ্যানে মগ্ন আমি লোভের পুঁটির নাচন সম্মুখে
কেন তবে দেখালে হায়!
আমার ধ্যান ভেঙ্গে যায়।

সন্ধ্যার সূর্যের মত
সেজদায় হতে চাই নত
আমিতো কেবল তোমারই অনুগত দাস হতে চাই।
তবে কেন অন্যের
চাকর বানালে হায়!
তার হুকুম তামিলে
আমার সেজদার
ধ্যান ভেঙ্গে যায়।

আমিতো একটা বৃক্ষের মত
ধ্যানী দরবেশ হতে চাই
পুত্র কন্যা জায়া
পিতা মাতা ভ্রাতা-ভগ্নী
ছায়ার মায়ায়
ফুলের সৌরভে
ফলের সন্ধানে
পাখিদের কলতানে
বোধি বৃক্ষের ধ্যান ভেঙ্গে যায়
আমিতো কেবল তোমার প্রেমে
ডুবে ডুবে ফানা হতে চাই
কেন তবে তুমি আমাকে জড়ালে
জগত ও জীবনের মায়ায়
সে সুতার টানে কেবল আমার
তোমাকে পাবার ধ্যান ভেঙ্গে যায়।

তাজ ইসলাম
সাভার, ঢাকা বাংলাদেশ ৷

- Advertisement -