নারীদের স্তন ছোট-বড় করার শরয়ী নির্দেশনা | শরিফ আহমাদ | শীর্ষবার্তা ডটকম

0 290


— শরিফ আহমাদ |

মহান আল্লাহ তায়ালা ইরশাদ করেছেন ,
ঈমানদার নারীদের বলুন, তারা যেন তাদের দৃষ্টিকে নত রাখে এবং তাদের যৌন অঙ্গের হেফাযত করে। তারা যেন যা সাধারণত প্রকাশমান, তাছাড়া তাদের সৌন্দর্য প্রদর্শন না করে এবং তারা যেন তাদের মাথার ওড়না বক্ষ দেশে ফেলে রাখে এবং …. (সূরা-নূর : ৩১)
পুরো আয়াতে বেশকিছু বিষয় পরিস্কার করা হয়েছে, ১. যৌনাঙ্গের হেফাজত, ২. জনসমক্ষে সৌন্দর্য প্রদর্শন না করা, ৩. ওড়না দিয়ে মাথা ও বক্ষদেশ ভালোভাবে ঢেকে রাখা, ৪. সৌন্দর্য প্রকাশ করা যাবে এমন আপনজনদের তালিকা এবং ৫. সাজসজ্জা ও অলঙ্কারাধী পরিধান করে রাস্তা জোরে পদচারণা না করা ইত্যাদি।
ওড়না দিয়ে বক্ষদেশ ঢেকে রাখা নিয়ে সামান্য কিছু কথা শোনা যাক-
নারীদের আকর্ষণীয় অঙ্গসমূহের মধ্যে স্তন হচ্ছে অন্যতম ৷ এটা মহান মালিকের বিশেষ দান ৷ নারীদের দুটো স্তনই কুদরত বহন করে তার ৷ প্রত্যেক স্তনে ৩২টি করে মোট ৬৪টি ছিদ্র রয়েছে ৷ এ ছিদ্র দিয়ে প্রয়োজন মতো বাচ্চার মুখে দুধ আসে ৷ দুধ নিয়ন্ত্রণ করার জন্য ফেরেশতা নিয়োজিত থাকে ৷ স্তন সর্বাধিক আকর্ষণীয় হওয়ায় এটার দ্বারা সহজে পরপুরুষের নজরে আসে নারী ৷ এজন্য এটাকে আবৃত রাখাটা অত্যান্ত জরুরি ৷ আল্লাহ তায়ালা এবিষয়ে নির্দেশনাও দিয়েছেন,
হে নবী! আপনি আপনার স্ত্রীদেরকে, কন্যাদেরকে ও মুমিনদের নারীগণকে বলুন, তারা যেন তাদের চাদরের কিছু অংশ নিজেদের উপর টেনে দেয়। এতে তাদেরকে চেনা সহজতর হবে, ফলে তাদেরকে উত্যক্ত করা হবে না”। [সূরা আল-আহযাব, আয়াত: ৫৯]
ডিজিটাল যুগের অধিকাংশ নারী প্রভুর বিধান এবং নবীজির সুন্নাত মতো চলে না ৷ রূপ লাবণ্য দেখিয়ে বেড়ায় ৷ অনেকেই মিডিয়ায় শিরোনাম হতে সার্জারি করে স্তন ছোট-বড় করে ৷ সঙ্কত কারণে প্রশ্ন ওঠে স্তন ছোট বড় করা বৈধ কিনা!
ওলামা-মাশায়েখ বিভিন্নভাবে জবাব দিয়ে থাকেন ৷ তারা বলেন মানুষের শরীর আল্লাহর আমানত। এর স্রষ্টা আল্লাহ রাব্বুল আলামীন। মানুষকে শুধু ভোগ দখলের অধিকার দেয়া হয়েছে। তাই শরীরকে যাচ্ছেতাইভা্বে পরিবর্তন করার অধিকার মানুষ সংরক্ষণ করে না। হ্যাঁ, অসুস্থ্য হলে অঙ্গ বেশি বড় হলে ভিন্ন কথা। কিন্তু সৌন্দর্যতার নামে শরীরের গঠন পরিবর্তন করা হারাম।
এ কারণেই হাদীসে পরিস্কার শব্দে মানুষের চুল মাথায় সংযোজন করতে নিষেধ করা হয়েছে। সেই সাথে দুই দাঁতের মাঝখানের ফাঁক সৃষ্টি করার জন্য দাতকে কিছুটা কর্তন করতে নিষেধাজ্ঞা এসেছে। এসব হাদীস প্রমাণ করে যে, শুধু সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য সার্জারী করে স্তন ছোট করা বা বড় করা জায়েজ নয়।

আবদুল্লাহ রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত। তিনি বলেনঃ মানবদেহে চিত্র অঙ্কনকারিণী ও অঙ্কনপ্রার্থিণী নারী, (বড় দেখাবার জন্য) কপাল ভ্রুর চুল উৎপাটনকারিণী ও উৎপাটনকামী নারী এবং (সৌন্দর্য সুষমা বৃদ্ধির মানসে) দাঁতের মাঝে (সুষম) ফাঁক সৃষ্টিকারিনী, যারা আল্লাহর সৃষ্টিতে বিকৃতি সাধনকারিণী, এদের আল্লাহ তা’আলা লানত করেন। [সহীহ মুসলিম, হাদীস নং-২১২৫]
হযরত আবূ রায়হানা রাদিয়াল্লাহু আনহু বলেন, নিশ্চয় রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম দাঁতকে চিকন করতে উল্কি আঁকতে এবং চুল উপড়ে ফেলাকে হারাম করেছেন। [সুনানে নাসায়ী, হাদীস নং-৫১১০]
অতএব নারীদের ইভটিজিং, উত্যক্ত হওয়া এবং গোনাহ থেকে বাঁচতে গুরুত্ব দিয়ে বক্ষদেশ ঢাকার বিকল্প নেই ৷

- Advertisement -