- Advertisement -

- Advertisement -

যেসব খাবার খেলে মোটা হওয়া যায়

36

যেসব খাবার খেলে মোটা হওয়া যায়

 

আসসালামু আলাইকুম,  আশাকরি শীর্ষবার্তার সকল পাঠক বন্ধুরা ভালো আছেন। আজকে আমরা আলোচনা করবো

যেসব খাবার খেলে মোটা হওয়া যায়“। তো কথা না বাড়িয়ে চলুন জেনে নেই যেসব খাবার খেলে আপনি স্থায়ীভাবে  মোটা হতে পারবেন।

গুগল সার্চের পরিসংখ্যান মতে প্রতিদিন মানুষ মোটা হওয়ার জন্য বিভিন্ন পরামর্শ জানার জন্য যেসব কথা লিখে সার্চ করে সেগুলো হলো,

  • মোটা হওয়ার উপায় 
  • সহজে মোটা হওয়ার উপায় 
  • ১ মাসে মোটা হওয়ার টিপস
  • মোটা হতে হলে কি যেসব খাবার খাবো
  • মোটা হওয়ার ১০টি কার্যকরি টিপস
  • মোটা হওয়ার ঔষধ 
  • স্থায়ী ভাবে মোটা হবার ঘরোয়া উপায়
  • যেসব খাবার খেলে ওজন বাড়ে 
আপনার মনের মধ্যেও যদি এরকম প্রশ্ন উঁকিঝুঁকি মারে, আপনি যদি স্থায়ীভাবে মোটা হবার প্রবল ইচ্ছে থাকে। আপনি যদি খু্বই চিকন হন, লোকে আপনাকে দেখে “চিকোন আলী” বলে হাসি ঠাট্টা মশকরা করে।  আপনি যদি আপনার ওজন বাড়িয়ে আরো সুন্দর স্বাস্থবান সুঠোম দেহের অধিকারি হতে চান তবে আপনার জন্যই আজকের এই পোষ্ট। 
 
আমি আজকে আপনাদের সাথে এমন কিছু খাবার নিয়ে আলোচনা করবো যেসব খাবার নিয়মিত  খেলে সত্যিই মোটা হওয়া যায়। 
১। দুধ
২। ভাতের মার ( ভ্যান ) 
৩। বাদাম
৪। ডিম
৫। খেজুর
৬। পনির,  মাখন
৭। রুটি
৮। পাউরুটি 
৯। আলু
১০। চিনি
১১। কলা
১২। আপেল 

- Advertisement -

১৩। ফলের রস
১৪। শাক সবজী 
১৫। কিচমিচ 
১৬। গরুর গোস্ত
১৭। খিচুড়ি 
১৮। ভাজা খাবার। 
 
কি এই লিষ্ট পড়ে ভাবছেন যে এগুলো তো প্রায় প্রতিদিনই খাই কিন্তু মোটা হচ্ছি না তো!  হ্যা আমিও জানি আপনি এগুলো খাবার নিয়মিতই খান কিন্তু তবুও মোটা হচ্ছেন না, কেন মোটা হচ্ছেন না, ওজন বাড়ছে না  জানেন? কারন আপনি এই খাবার গুলা নিয়মি মেনে সঠিক পদ্ধতিতে খান না,  তাই আপনি এই খাবার থেকে উপকৃত হচ্ছেন না আপনি স্বাস্থবান হচ্ছেন না। 
 
আজকে আমি আপনাদের জনাবো কিভাবে এই খাবার গুলা খেয়ে আপনি স্থায়ীভাবে মোটা হবেন।  সুন্দর স্বাস্থবান আকর্ষনীয় হবেন। 
 
যেসব খাবার খেলে মোটা হওয়া যায়  সে বিষয়ে বিস্তারিত জানার আগে আর একটা তথ্য আপনাদের জানাতে চাই তা হলো, 
মানুষের উচ্চতা অনুযায়ী ওজন কেমন হওয়া উচিত।  আপনার উচ্চতার সাথে যদি সঠিক ওজন না থাকে যদি উচ্চতার অনুযায়ী আপনার ওজন কম থাকে তবেই আপনি মোটা হবার জন্য ট্রাই করবেন। 
নিচের চার্ট থেকে মিলিয়ে নিন আপনার উচ্চতা অনুযায়ী ওজন ঠিক আছে কিনা

                       

যেসব খাবার খেলে মোটা হওয়া যায়

 

 
আশাকরি আপনি উপরে প্রদত্ত চার্টটি ভালোভাবে পড়েছেন এবং আপনার উচ্চতা অনুযায়ী আপনার ওজন কম আছে।  তাই না?
 
যদি আপনার উত্তর হ্যা হয়  তবে আপনি যেসব খাবার খেলো মোটা হবেন জেনে নিন সেসব খাবার খাওয়ার নিযমঃ
 

দুধ ও মধুঃ

মোটা হবার জন্য দুধ ও মধু একটি  কার্যকারি উপদানা । রাতে ঘুমাবার আগে একগ্লাস গরম দুধ সাথে কিছু মধু মিশেয়ে খেয়ে ঘুমিয়ে পড়ুন  । এভাবে নিয়মিত একমাস খান আর নিজেই দেখুন চমক । 

 

যেসব খাবার খেলে মোটা হওয়া যায়

ভাতের মার ও রুটি ঃ 

 
আপনি যদি নিয়মিত ভাতের গরম মার এবং রুটি খান তবে  আপনার স্বাস্থের উন্নতি হবেই। কারন সবচেয়ে বেশী কার্বোহাইড্রেট পাওয়া যায় ভাত ও রুটিতে তাই প্রতিদিন ভাত ও রুটি খাবেন। 

কিচমিচঃ

ওজন বাড়াতে কিসিমিস খুবই ভালো কাজ করে । কিচমিচে রয়েছে এমন সব উপাদান যার ফলে , শীরের শক্তি যোগাতে ও দেহের ওজন বাড়তে বিশেষ ভুমিকা রাখে । প্রতিদিন রাতে একমুঠ কিসমিস সাথে কিছু ছোলা বুট ভিজিয়ে রাখুন সকালে ফজরের পড়ে দেখেবেন কিচমিচ  এবং ছোলা বুট ফুলে টসটসে হয়ে আছে ।  ভেজানো বুট এবং ছোলা এভাবে প্রতিদিন ২ মাস খান আর নিজেই নিজের পরিবর্তন দেখুন । 

ডিম ঃ

ডিম তো আপনি মোটামুটি প্রায়ই খান তাইনা ? এখন থেকে ডিম আপনি নিয়মিত খাবেন । একদিনও মিস করবেন না । ডিমে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন। শরীরের ওজন বাড়ানোর জন্য প্রোটিন খুবই প্রয়োজনীয় । তাছাড়া ডিমের কুসুমে রয়েছে প্রচুর পরিমান ক্যালোরী যা আপনাকে দ্রুত মোটা হতে সাহায্য করবে । 
 

যেসব খাবার খেলে মোটা হওয়া য়ায়ঃ 

আলুঃ 

যেসব খাবার খেয়ে মোটা হওয়া যায় তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে আলু । আলুতে শর্ককার পাশাপশি আছে ফাইবার ,খনিজ লবন, উদ্ভিদ ও প্রানিজ প্রটিন আছে । প্রতি ১০০% আলুতে আছে ১৯ গ্রাম শর্করা , ২.২ গ্রাম খাবার আশ, উদ্ভিদ প্রটিন ২  গ্রাম, খনিজ লবন ০.৫২ গ্রাম  এর মধ্যে পটাশিয়াম লবনই আছে ০.৪২ গ্রাম । এবং ভিটামিন আছে ০.২  গ্রাম । এছাড়াও আলুতে এমন অনেক উপাদান আছে যেগুলা অপনাকে দ্রুত মোটা এবং স্বাস্থবান হতে সাহায্য করবে ।
 

গরুর মাংসঃ 

যেসব খাবার খেলে মোটা হওয়া যায়  গরুর গোস্ত তার মধ্যে একটি উপাদান । গরুর গোস্ত প্রটিনের সম্পুর্ন উৎস । মানুষের বহু প্রয়োজনীয় ফ্যাটি এসিড , ভিটামিন , খনিজ লবন  এতে বিদ্যমান । আপনি যদি স্বাস্থবান হতে চান তবে গরুর মাংষ খান । তবে নিয়ম মেনে খাবেন । কারন অতিমাত্রায় গরুর মাংস খেলে উপকারের চেয়ে ক্ষতির পরিমানটাই বেশী হবে  । দৈনিক গরুর মাংস খাবার নিরাপদ মাত্রা হলো ৩ আউন্স মানে ৮৫ গ্রাম। সহজ ভাষায় বলতে গেলে ৩/৪ টুকরা । 

যেসব খাবার খেলে মোটা হওয়া য়ায়ঃ 

ভূনা খিচুড়ী ঃ

 
ভুনা খিচুড়ী খেলেও আপনার ওজন বেড়ে যাবে।আপনি প্রতিদিন সকালে  একটা ডিম এর সাথে এক প্লেট খিচুড়ী খাবেন । এভাবে নিয়মত খিচুড়ি খেতে পারলে আপনি দ্রুত মোটা হতে পারবেন । কোন প্রকার ঔষধ সেবন ছাড়াই । 
 

বাদামঃ

বাদাম আপনাকে স্বাস্থবান হতে সাহায্য করবে । যখনি খুদা লাগবে মুঠ ভরে বাদাম খেয়ে নিন । 

ফলের রস ঃ

 

যেসব খাবার খেলে মোটা হওয়া যায়

যেসব খাবার খেলে মোটা হওয়া যায় তার মধ্যে আরেকটা উপাদান হলো ফলের রস আপনি নিয়মিত সকাল বিকেল ফলের রস খান দেখবেন অতি দ্রুত আপনি স্বাস্থ্যবান হয়ে গেছেন। 
এছাড়া আপনি মোটা হতে চাইলে নিয়মিত কলা মিষ্টি কুমড়া সহ  এ জাতিয় বিভিন্ন ধরনের শবজি খাবেন বেশী বেশী । মোট কথা আপনি যদি অতি দ্রুত স্হায়ীভাবে মোটা হতে চান তবে আপনাকে প্রচুর পরিমান ক্যলোরি যুক্ত খাবার খেতে হবে। যেকো্ন কিছু খাবেন তৃপ্তি সহকারে খাবেন । আপনি যদি নিয়মিত তৃপ্তিসহকারে খাবার খান আশা করি আপনি স্বাস্থবান হবেন ইনশাআল্লাহ । 

 

যেসব খাবার খেলে মোটা হওয়া য়ায়ঃ 

 

দ্রুত মোটা হওয়ার জন্য আরো কিছু ঘরোয়া টিপস ঃ

  • প্রতিদিন সকালে ঘুম থেকে উঠার অভ্যাস করুন । ফজরের নামাজের পর আর একদমই ঘুমাবেন না রাত্রে তারাতড়ি ঘুমানেরা অভ্যাস করুন। দৈনিক ৭/৮ ঘন্টা ঘুমানোর চেষ্টা করুন । 
  • প্রতিদিন ব্যায়াম করুন । কারন ব্যায়াম করলের প্রচুর খুদা লাগে । শরীরে কোষ ভেঙ্গে নতুন কোষ তৈরী হয়।
  • প্রতিদিন দুপুরে খাবারের পর ঘুমাতে পারলে ভালো । এই অভ্যাস টা মোটা হতে আপনাকে সাহায্য করবে । 
  • চা কফিতে দুধ চিনি বেশী করে খেতে পারেন  এতে করে আপনার ওজন বাড়বে । 
  • খাবার সময় আগে মাছ মাংষ পরে শাক সবজি খান । এটা আপনাকে বেশী বেশী ক্যালোরী ও প্রটিনের যোগান দেবে । 
  • ধুমপান সহ যাবতীয় নেশা জাতীয় অভ্যাস ছেড়ে দিন। 
 
আশা করি আপনি যদি উপরে দেওয়া ফর্মুলা ফলো করেন এবং নিয়মিত খান তবে আপনি খুব দ্রুত ফলাফল পাবেন । তবে অনেকের হরমানগত সমস্যার কারনে সে যতকিছুই খাক না কেন তার শরীরের কোন উন্নতই হবে না ।এরকম কেউ থাকলে দ্রুত ডাক্তারের কাছে যান । বাজারে বিভিন্ন ধরনেরর মোটা হওয়ার ঔষধ পাওয়া যায় যার বেশীরভাগই মানব দেহের জন্য মারাত্বক ক্ষতিকর ।  এসব সিরাপ জাতীয়  ঔষধ সেবন করার আগে অবশ্যই রেজির্ষ্টাড ডাক্তারের পরামর্শ নিবেন । ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন । আমাদরে এই পোষ্ট থেকে কিছু শিখতে পারলে আশা করি আপনার বন্ধুদের মাঝে পোষ্টটি শেয়ার করবেন । 

 

আরো পড়ুন – কবর জিয়ারতের দোয়া ও নিয়ম