১৫ আগস্ট উপলক্ষে বক্তৃতা | জাতীয় শোক দিবসের ভাষণ

14,744

১৫ আগস্ট উপলক্ষে বক্তৃতা | শোক দিবসের ভাষণ

আসসালামু আলাইকুম ওরাহমাতুল্লাহি ওয়াবারাকাতুহ ৷ প্রিয় পাঠক! আপনাদের সুস্থতা কামনা করে আজ অতি গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় আমরা আপনাদের লেখা উপহার দিতে চলেছি ৷ ১৫ই আগস্ট বাঙালি জাতির জন্য এক কলঙ্কজনক দিন ৷ জাতীয় শোক দিবস ৷ জাতীয়ভাবে এই দিনটিকে শোকের দিন হিসেবে পালন করা হয়ে থাকে ৷ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এই দিনে ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসের বক্তৃতা প্রতিযোগিতার আয়োজন করে থাকে ৷ সেখানে জাতীয় শোক দিবসের বক্তৃতা উপস্থাপন করতে হয় ৷

আরও দেখুনঃ জাতীয় শোক দিবস রচনা

আজ আমরা শীর্ষবার্তা ডটকমের পাঠকদের জন্য ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসের বক্তৃতা নোট তুলে ধরছি ৷ আশা করছি আপনাদের এই লেখাটি ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসের অনুষ্ঠানের বক্তব্য প্রদানে সহযোগিতা করবে ৷

১৫ আগস্ট উপলক্ষে বক্তৃতা | শোক দিবসের ভাষণ

বক্তৃতা দেয়ার ক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই কয়েকটি বিষয় লক্ষ্য রাখতে হবে ৷ আর বক্তৃতাটা যদি হয় প্রতিযোগিতা ৷ সেক্ষেত্রে অন্যান্যদের তুলনায় আপনার কথা বলার স্টাইল ৷ আপনার উপস্থাপনা ভঙ্গি ৷ আপনার অঙ্গভঙ্গি ৷ যাবতীয় বিষয় বিচারকরা লক্ষ্য করবেন ৷

সুতরাং বক্তৃতা দেয়ার সময় আপনাকে অবশ্যই এ বিষয়গুলো খেয়াল করে বক্তৃতা দিতে হবে ৷ অন্যদের তুলনায় আপনার কথা বলার ধরন যেন ভিন্ন হয় ৷ এবং সেটা যেন প্রফেশনাল এবং সবার থেকে সেরা হয় ৷ সে বিষয়ে আপনাকে খেয়াল রাখতে হবে ৷ বক্তৃতা প্রতিযোগিতায় সে সকল প্রতিযোগী বিজয় অর্জন করতে পারে যারা পর্যাপ্ত পরিমাণ তথ্য-উপত্র সাথে নিয়ে যথেষ্ট সাহসিকতার সাথে বক্তব্য উপস্থাপন করতে পারে ৷

১৫ আগস্ট উপলক্ষে বক্তৃতা | শোক দিবসের ভাষণ
১৫ আগস্ট উপলক্ষে বক্তৃতা | শোক দিবসের ভাষণ

বাংলাদেশের স্বাধীনতার স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে বক্তৃতা দেয়ার ক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই একটু সচেতন এজন্য থাকতে হবে ৷ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তিনি বক্তব্য দিয়ে কিন্তু বাংলাদেশ স্বাধীন করেছেন ৷ তার ৭ই মার্চের ভাষণের জেরেই বাংলাদেশের আপ অমর জনতা ৷ কৃষক শ্রমিক ৷ ছাত্র-যুবক সবাই বাংলাদেশের মাটিকে হানাদার মুক্ত করার জন্য প্রাণপণ লড়াই করেছেন ৷ এমন ক্ষুরধার অনল বর্ষী বক্তা সম্পর্কে আপনি কথা বলতে গেলে আপনার বক্তব্য ও সেরকম হওয়া চাই ৷

 

 

শোক দিবসের বক্তৃতা

আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহ ৷ ১৫ ই আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আজকের এই প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানের উপস্থিত মান্যবর সভাপতি ৷ মঞ্চে উপবিষ্ট অতিথি বৃন্দ ৷ আমার সামনে উপবিষ্ট বঙ্গবন্ধুর আদর্শে অনুপ্রাণিত এক ঝাঁক শিক্ষার্থীবৃন্দ ৷ আজ আমরা কেন এখানে উপস্থিত হয়েছি সকলেই অবগত আছি ৷ ১৫ই আগস্ট ১৯৭৫ সালে জাতির এক কালো দিন ৷ যেদিন বাঙালি জাতি একদল বিপদগামী সেনা সদস্যদের মাধ্যমে তাদের প্রাণপ্রিয় নেতা ৷ হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হারিয়েছিল ৷ শুধু বঙ্গবন্ধুই নয় তার অবুঝ শিশু সহ পুরো পরিবারকে ধ্বংসযজ্ঞে পরিণত করা হয়েছিল ৷ এই নির্মম হত্যাকাণ্ডের আমরা আজ গভীরভাবে সমবেদনা জ্ঞাপন করছি ৷ সমব্যথী হচ্ছি ৷ শ্রদ্ধায় অশ্রু নিবেদন করছি ৷ এবং তাদের রুহের মাগফিরাত কামনায় মহান প্রভুর দরবারে দোয়া করছি ৷

১৫ আগস্ট উপলক্ষে বক্তৃতা

 

- Advertisement -

আজ আমরা অত্যন্ত দুঃখ ভারাক্রান্ত মন নিয়ে শোক দিবস পালনার্থে এই প্রোগ্রামে উপস্থিত হয়েছি ৷ আমি সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে আমার বক্তব্য শুরু করছি ৷

সম্মানিত সুধী!
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবার বর্গের হত্যাকান্ড বাংলাদেশের আপরমর জনতার জন্য এক কলঙ্কজনক অধ্যায় ৷ আমরা সবাই জানি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতা একে অপরের সাথে আষ্টেপৃষ্ঠ জড়িত আছে ৷ যেই বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণে বাঙালি জাতি ঐক্যবদ্ধ হয়েছিল ৷ পাক হানাদার বাহিনীকে পর্যুদস্ত করে বাংলাদেশের সূর্য স্বাধীনতার পতাকা ছিনিয়ে এনেছিল ৷ লক্ষ লক্ষ বাংলাদেশি তরুণ যুবক কৃষক শ্রমিক নিজেদের জীবনকে আত্মহুতি দিয়ে দেশকে স্বাধীন করেছিল ৷ এটা সম্পূর্ণ বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ভাষণের অনুপ্রেরণা ছিল ৷ তাই বলতে পারি বঙ্গবন্ধু মানেই স্বাধীনতা ৷ বঙ্গবন্ধু মানেই বাংলাদেশের মানচিত্র ৷

 

 

প্রিয় উপস্থিতি! কিন্তু ভাগ্যের কি নির্মম পরিহাস ৷ যে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জনের পেছনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছেন ৷ বাংলাদেশকে স্বাধীনতার স্বাদ আস্বাদন করানোর জন্য যার অক্লান্ত পরিশ্রম ৷ যিনি স্বাধীনতা পরবর্তী বাংলাদেশকে গড়ে তুলবার জন্য নিজের যা যা করণীয় তাই তিনি করেছেন ৷ সেই বঙ্গবন্ধুকে সর্বশেষ নিজের জীবনকে পর্যন্ত বাংলাদেশের মাটি ও মানুষের জন্য উৎসর্গ করতে হয়েছে ৷ কতিপয় বিপদগামী সেনা সদস্য বঙ্গবন্ধুকে তার পরিবারসহ ব্রাশফায়ার করে দুনিয়া থেকে চিরতরে মৃত্যু দিয়েছিল ৷

এতকিছুর বড় আশা জাগানিয়া হচ্ছে বঙ্গবন্ধুর খুনিদের বিচার হয়েছে ৷

প্রিয় সুধী মন্ডলী! আজ ১৫ই আগস্ট জাতীয় শোক দিবস পালনার্থে আমরা এখানে সমবেত হয়েছি ৷ শুধু আজকে অশ্রুপাত নয় ৷ বরং শোককে শক্তিতে পরিণত করে বঙ্গবন্ধু যে সোনার বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন দেখেছিলেন ৷ খুদা দারিদ্র্যমুক্ত অসাম্প্রদায়িক একটি সোনার বাংলাদেশ গড়ার যে স্বপ্ন তিনি দেখেছিলেন ৷ তা বাস্তবায়ন করার জন্য প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হলেই আজকের এই প্রোগ্রাম সার্থক হবে ৷

শোক দিবসের ভাষণ

 

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের চমৎকার কিছু ভালো দিক এবং গুণ রয়েছে ৷ তিনি দেশকে চোর মুক্ত করার জন্য ৷ দুর্নীতিমুক্ত করার জন্য অনেক কাজ করেছেন ৷ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছোটবেলার একটি ঘটনা আমার মনে পড়ে গেল ৷ একদিন তিনি স্কুলে ছাতা নিয়ে বেরিয়েছিলেন ৷ কিন্তু স্কুল থেকে ছাতা ছাড়াই বাড়িতে আসলেন ৷ তার মা বলল, খোকা তোমার ছাতা কোথায়? তখন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বললেন, তার এক গরীব বন্ধু রয়েছে ৷ যার ছাতা নেই ৷ বৃষ্টিতে ভিজে সে স্কুলে আসা যাওয়া করে ৷ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তাকে সেই ছাতাটি দিয়েছিলেন ৷ যাতে করে তার স্কুলে আসতে ভিজতে না হয় ৷

- Advertisement -

আরেক দিন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শীতের সময় চাদর নিয়ে বাইরে গিয়েছিলেন ৷ কিন্তু বাইরে থেকে যখন ঘরে ফিরলেন তখন তার গায়ে চাদর ছিল না ৷ বঙ্গবন্ধুর মা তাকে জিজ্ঞেস করলে তিনি বললেন, আমি রাস্তার ধারে একজন বুড়ি মাকে দেখেছি ৷ তিনি ঠকঠক করে শীতে কাঁপছেন ৷ আমি তাকে চাদরটি দিয়ে এসেছি ৷ কতটা মানবিক ছিলেন তিনি ৷

 

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেশ মাটি ও মানুষের জন্য তারা আজন্ম যুদ্ধ ছিল ৷ তিনি চেয়েছিলেন চমৎকার একটি বাংলাদেশ গড়ার ৷ তিনি সমৃদ্ধ একটি বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন দেখেছিলেন ৷ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান একজন মুসলিম হিসেবে তিনি ইসলাম ধর্ম প্রচারের ক্ষেত্রেও ভূমিকা পালন করেছেন ৷ বাংলাদেশের প্রতিটি গ্রামে গঞ্জে ইসলামিক ফাউন্ডেশন এর মাধ্যমে কুরআনী মক্তবের কার্যক্রম ছড়িয়ে দিয়েছিলেন ৷ শুধু তাই নয় বিশ্ব ইজতেমার জন্য টঙ্গীতে জায়গার ব্যবস্থা করার মাধ্যমে ইসলামের সুমহান খেদমত নিয়ে আঞ্জাম দিয়েছেন ৷

আরও পড়ুনঃ  শোক দিবসের ছড়া-কবিতা

সুধীবৃন্দ,
জাতীয় শোক দিবসকে শোক প্রকাশের দিন বলে বিবেচনা না করে অঙ্গীকারের দিন বলে বিবেচনা করতে হবে। সে অঙ্গীকার হবে সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ে তোলার। আসুন আমরা সেই মহৎ উদ্দেশ্যে নিজেদের নিবেদিত করি।

বাংলাদেশ চিরজীবী হোক। খোদা হাফেজ।

শেষকথা

প্রিয় পাঠক আমাদের উপস্থাপিত বক্তব্যটি আশা করছি আপনাদের ভালো লেগেছে ৷ এবং ১৫ ই আগস্ট জাতীয় শোক দিবসে বক্তৃতা উপস্থাপনের ক্ষেত্রে যথেষ্ট রসদ পেয়েছেন ৷ এবং যদি প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই আশা করছি আপনি বিজয়ী হয়েছেন বা হবেন ৷ আপনাদের জন্য আমাদের অনেক অনেক প্রীতি ভালবাসা শুভেচ্ছা ৷ আল্লাহ হাফেজ ৷

- Advertisement -